৭ খুন রায়ে র‌্যাবের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়নি

র‌্যাবের মহাপরিচালক বেনজির আহমেদ বলেছেন, নারায়ণগঞ্জে র‌্যাবের কিছু লোক ব্যক্তিগতভাবে কাজ করেছে। তারা তাদের কাজের শাস্তি পেয়েছে। এতে র‌্যাবের কোনো ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়নি।

শুক্রবার বেলা সাড়ে ১২টায় র‌্যাব-১৩ এর উদ্যোগে রংপুর পানি উন্নয়ন বোর্ড মাঠে শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, র‌্যাব দীর্ঘ ১৩ বছর থেকে এদেশে মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। এদেশের মানুষ র‌্যাবের প্রতি আস্থাশীল। যেকোন মূল্যেই র‌্যাবকে সুশৃঙ্খল রাখা হবে।

তিনি আরো বলেন, নারায়ণগঞ্জের ৭ খুনের ঘটনায় র‌্যাবই প্রথম তদন্ত করে একদিনের মাথায় সিদ্ধান্ত নিয়ে জড়িতদের বরখাস্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করে। র‌্যাব কোনো অন্যায়কে প্রশয় দেয় না। ইতোমধ্যে বিভিন্ন অভিযোগে র‌্যারের অনেক সদস্যকে জেল, বরখাস্ত ও চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।

সুন্দরগঞ্জের এমপি লিটন হত্যা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, পুলিশের পাশাপশি র‌্যাব সদস্যরা লিটনের হত্যা রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা করছেন। প্রকৃত খুনিরা গ্রেফতার না হওয়া পর্যন্ত র্যাবের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

জঙ্গি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, জঙ্গি সদস্যদের অধিকাংশই উত্তরাঞ্চলের। কেন এরা জঙ্গি সংশ্লিষ্টতায় জড়িয়ে পড়ছে এ জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও র‌্যাব যৌথভাবে গবেষণার উদ্যোগ নিয়েছে। এই গবেষণার কাজ দেশের ১৪ জেলায় চলবে।

তিনি বলেন, ২০০৪ সালের পর পুনরায় ২০১৪ সালে জঙ্গিরা সংগঠিত হওয়ার চেষ্টা করছে। এদের সংখ্যা এক হাজারের অনেক কম। অনেকেই গ্রেফতার হয়ে জেল হাজতে রয়েছেন। এর কারণ খুঁজতেই গবেষণার প্রয়োজন।

তিনি শীর্তাত মানুষের পাশে বিত্তবানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে বলেন, দেশের অন্যান্য স্থানের চেয়ে উত্তরাঞ্চলে শীতের প্রকোপ বেশি। ১০ বছর আগেও কুড়িগ্রাম মঙ্গাপীড়িত এলাকা হিসেবে পরিচিত ছিল। এখন মঙ্গা শব্দটি ইতিহাস থেকে বিলুপ্ত হয়েছে।

এসময় অন্যান্যের মধ্যে র‌্যাবের অতিরিক্ত মহা পরিচালক কর্নেল আনোয়ার লতিফ, রংপুর রেঞ্জের ভারপ্রাপ্ত ডিআইজি বশির আহমেদ, র‌্যাব-১৩ এর অধিনায়ক কমান্ডার আতিকুল্ল্যাহসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিতি ছিলেন।