সিটিসেলের মেহবুব চৌধুরী গ্রেপ্তার

সিটিসেল বা এর মূল প্রতিষ্ঠান প্যাসিফিক টেলিকম বাংলাদেশ লিমিটেডের (পিবিটিসিএল) প্রধান নির্বাহী মেহবুব চৌধুরীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গতকাল শনিবার শ্রীলঙ্কা থেকে দেশে ফেরার পর হযরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে তাকে আটক করে ইমিগ্রেশন পুলিশ। এরপর দুর্নীতি দমন কমিশনের এক মামলায় তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। গত বুধবার বনানী থানায় দুদকের উপ-পরিচালক শেখ আবদুস ছালাম বাদী হয়ে মামলাটি দায়েরের চতুর্থ দিন গ্রেপ্তার হন তিনি। আরব বাংলাদেশ (এবি) ব্যাংক থেকে ৩৮৩ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে তিনিসহ পিটিবিসিএলের স্বত্বাধিকারী ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী এম. মোরশেদ খানসহ ১৬ জনকে আসামি করা হয়েছে মামলায়। বনানী থানার দায়িত্বরত কর্মকর্তা (ডিউটি অফিসার) বলেন, বিমানবন্দর থেকে গ্রেপ্তারের পর তাকে বনানী থানা হাজতে আনা হয়। দুদকের জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্যও মেহবুব চৌধুরীকে গ্রেপ্তারের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
আজ তাকে আদালতে তোলা হবে বলেও জানান তিনি। মামলার অন্য আসামিরা হলেন, এবি ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাইজার আহমেদ, এম ফজলুর রহমান, সাবেক উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালক মসিউর রহমান চৌধুরী, এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট সালমা আক্তার, সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক শামীম আহম্মেদ চৌধুরী, এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট মহাদেব সরকার সুমন। এছাড়া ব্যাংকটির এসভিপি সৈয়দ ফরহাদ আলম, সাবেক এসভিপি আরশাদ মাহমুদ খান, জাহাঙ্গীর আলম, অপারেশনস বিভাগের কর্মকর্তা শাহানুর পারভীন চৌধুরী, সাবক এভিপি জার ই এলাহী খান ও যোগাযোগ কর্মকর্তা মো. কামরুজ্জামানকে মামলায় আসামি করা হয়েছে।
মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, অসৎ উদ্দেশ্যে ও অন্যায়ভাবে আর্থিক লাভের জন্য প্যাসিফিক টেলিকম বাংলাদেশ লিমিটেডের ব্যাংক গ্যারান্টির আবেদন যাচাই বাছাই না করেই প্রতারণা, দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের মাধ্যমে ওই ঋণ অনুমোদন করা হয়।