নারীর জরায়ুতে পাওয়া গেছে বিড়ালের লোম! (ভিডিওসহ)

নতুন সকাল, ২৯ জুলাই, ঢাকা: যুক্তরাষ্ট্রের মিশেল ব্যারো নামের এক নারীর জরায়ুতে বিড়ালের লোম পাওয়া গেছে। অনেকদিন ধরে জরায়ুতে ব্যথা অনুভব করছিলেন। কিন্তু তাতে কোনো গুরুত্ত্ব দেননি তিনি। এক সময় ব্যথা অসহনীয় পর্যায়ে গেলে ডাক্তারের কাছে যান ওই নারী। ডাক্তার তার জরায়ু পরীক্ষা করে বিড়ালের লোম থাকার ব্যপারে নিশ্চিত করেন।

মিশেল ব্যারো হলেন বিড়ালভক্ত এক নারী। ক্রিকেট ও ডোনেট নামের দুটি বিড়াল আছে তার। তিনি সারাক্ষণ তাদের সঙ্গে খেলা করেন। এমনকি ঘুমোতে যাওয়ার সময়ও বিড়াল দুটিকে তিনি সঙ্গে রাখেন।

কয়েক মাস আগে হঠাৎ পেটে ব্যথা অনুভব করেন তিনি। কিন্তু তাতে কিছু মনে করেননি। কারণ তার জরায়ুতে জন্মনিরোধ ডিভাইস লাগানো আছে। তিনি ভেবেছিলেন হইতো সেই ডিভাইসটির জন্যই এমন ব্যথা হচ্ছে। কিছুদিন গেলে সেরে যাবে। এভাবে কয়েকদিন কেটে যায়। কিন্তু সে ব্যথা আর সেরে ওঠে না। আরও বাড়তে থাকে।

এমন পরিস্তিতিতে কোনো উপায় না দেখে ডাক্তারের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। ডাক্তার তার জরায়ু পরীক্ষা করেন এবং প্রায় দুই ইঞ্চি লম্বা ও শক্ত পদার্থ দলা অবস্থায় দেখতে পান তার জরায়ুতে। পরে অপারেশনের মাধ্যমে দলাটি বের করা হয়। দলাটিতে ওই নারীর পোষা ডোনেট নামের বিড়ালটির লোম পাওয়া যায়।
কিন্তু সবার মনে প্রশ্ন জাগে বিড়ালের লোম তার জরায়ুর ভেতরে গেল কীভাবে। অনেকে বিষয়টিকে নেতিবাচক হিসেবে ধরে নেয়। হইতো সেই নারী বিড়ালের সঙ্গে কোনো অনৈতিক সম্পর্কে লিপ্ত হয়েছিল।

মিশেল ব্যারো একজন লেখিকা। সম্প্রতি এক্সোজানে নামের একটি নারীবিষয়ক ম্যাগাজিনে এ বিষয়ে একটি লেখা প্রকাশ করেন। লেখাটির হেডলাইন ছিল ঠিক এই রকমের ‘আমার স্ত্রীরোগবিশেষজ্ঞ আমার জরায়ু থেকে বিড়ালের লোম উদ্ধার করেছেন।’

সেখানে তিনি বলেন, অনেকে আমাকে দোষ দিচ্ছেন বা খারাপ মন্তব্য করছেন। তবে বিড়ালের সঙ্গে আমার তেমন কিছুই হইনি। আমার ক্রিকেট ও ডোনেট (তার পোষা দুটি বিড়াল) সব সময় আমার সঙ্গেই থাকে। এমনকি ঘুমানোর সময়ও আমার আর আমার স্বামীর সঙ্গে ঘুমায়। এমন হতে পারে তারা (বিড়াল) যেহেতু আমাদের সঙ্গে ঘুমায় তাদের লোম বিছানায় লেগে ছিল। তারপর তা আমার স্বামীর যৌনাঙ্গে লেগে যৌনমিলনের সময় আমার জরায়ুতে প্রবেশ করেছে। অথবা ঘুমানোর সময় আমার যোনাঙ্গে লেগে যৌনমিলনের সময় ভেতরে ঢুকেছে। যেহেতু আমি উলঙ্গ হয়ে ঘুমায় তাই বিড়ালের লোম যৌনাঙ্গে লাগতেই পারে। হয়তো সেখান থেকে আমার জরায়ুতে গেছে। আর ডাক্তারও তেমনটি অনুমান করছেন।

ডাক্তার বলেন, যৌনমিলেন সময় সেটি জরায়ুতে প্রবেশ করেছে। তারপর ভেতরে থাকা জন্মনিরোধী ডিভাইসের তারের সঙ্গে আটকে গেছে। আর আঁটকে যাওয়ায় একের পর এক অন্যান্য আবর্জনা সেই লোমটির সঙ্গে দলা পাকিয়ে বড় আকার ধারণ করেছে।

জরায়ুতে বিড়ালের লোম পাওয়া নারী মিশেল ব্যারোর ভিডিও:

নতুন সকাল/ এমআই