চীরবিদায় নিলেন সাংবাদিক তৈয়বুর রহমান

সাংবাদিক তৈয়বুর রহমান অগ্নিদগ্ধ হওয়ার পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বুধবার বিকালে তার মৃত্যু হয়। তার বয়স হয়েছিল ৫৮ বছর।

সাংবাদিক তৈয়বুর রহমানের তিন মাস আগে স্ট্রোকে আক্রান্ত হন। তখন থেকে তিনি বাকশক্তিহীন ছিলেন। রংপুরে তার গ্রামের বাড়িতে পরিবারের সঙ্গে ছিলেন। মঙ্গলবার দুপুরে গোসল করানোর পর চেয়ারে বসিয়ে নিচে মশার কয়েল জ্বালিয়ে রাখা হয়েছিল। সেই কয়েল থেকে আগুন ধরে দগ্ধ হন তিনি। এরপর তাকে হাসপাতালে আনা হয়। রংপুর মেডিকেলের বার্ন ইউনিটের প্রধান মারুফুল ইসলাম জানান, আগুনে তার কোমর থেকে নিচের অংশ দগ্ধ হয়েছিল।

সাংবাদিক তৈয়বুর রহমান কাজ করেছেন দৈনিক আজাদ, দৈনিক সংবাদ, প্রথম আলো, জনকণ্ঠ, বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম, দৈনিক মানবকণ্ঠ এবং রাইজিং বিডিতে। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর করার পর কাস্টমসে চাকরি নিয়েছিলেন। কিন্তু সেখানে নিজেকে মানিয়ে নিতে না পেরে সাংবাদিকতায় চলে আসেন।

সাংবাদিক তৈয়বুর রহমান নিঃসন্তান ছিলেন।