সৌদি মুফতির ফতোয়া: মুসলমানরা গির্জায়ও নামাজ পড়তে পারবে

সৌদি আরবের ‘কাউন্সিল অব সিনিয়র স্কলারসের সদস্য আব্দুল্লাহ বিন সুলাইমান আল মানিয়া ফতোয়া দিয়েছেন যে, মুসলমানরা গির্জায় গিয়েও নামাজ পড়তে পারবে। তিনি বলেন, পৃথিবী আল্লাহর সৃষ্টি। পৃথিবীর সব মাটি পবিত্র। তাই মুসলমানরা গির্জায় গিয়েও নামাজ পড়তে পারবে। গির্জায় গিয়ে নামাজ পড়তে কোন বাধা নেই।
 মুফতি আরো বলেন, ইসলাম হচ্ছে শান্তি ও ক্ষমার ধর্ম। এখানে সংঘাতের কোনো সুযোগ নেই। মুসলমানদের উচিত সত্যিকার ইসলামের প্রচার করা, যা মুহাম্মদ (সা.) করেছেন।

 আল মানিয়া বলেন, ইসলামে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিকে প্রাধান্য দেয়া হয়েছে। মৌলিক ইবাদতের ক্ষেত্রে মুসলমানদের মধ্যে কোনো পার্থক্য নেই। কিন্তু গোষ্ঠীগত পার্থক্য আছে।

গির্জায় গিয়ে নামাজ পড়ার পক্ষে যুক্তি হিসেবে তিনি বলেন, একটি অনুষ্ঠানে মুহাম্মদ (সা.) মসজিদের মধ্যে নজরানের খ্রিস্টানদের দাওয়াত করে এনেছিলেন। এবং মসজিদের মধ্যে খ্রিস্টানদের তাদের নিজেদের ধর্মীয় আচারের অনুমোদন দিয়েছিলেন।১০ বছর আগেও আল মানিয়া এক বিবৃতিতে মুসলমানদের গির্জায় গিয়ে নামাজ পড়তে কোনো বাধা নেই বলে উল্লেখ করেছিলেন।ওই বিবৃতিতে হযরত ওমর (রা.) একবার জেরুজালেম গিয়েছিলেন এবং সেখানে তিনি গির্জায় বা অন্য ধর্মের লোকদের সঙ্গে ইবাদত কেন্দ্রে একত্রিত হতে আপত্তি করেন বলে উল্লেখ করা হয়। তখন ওমর (রা.) গির্জার বাইরে নামাজ পড়েছিলেন। তারপর সেখানে ওমর (রা.) এর নামে একটি মসজিদ তৈরি হয়। তবে ওমর (রা.) গির্জায় নামাজ পড়া যাবে না এমন কোনো কথা বলেননি বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।
আল মানিয়া তার ফতোয়ায় বলেন, মুসলমানরা খ্রিস্টানদের সম্পর্কে জানার জন্যও গির্জায় যেতে পারবে। খ্রিস্টানরাও মসজিদুল হারাম বাদে অন্য সব মসজিদে যেতে পারবে। আরব নিউজ।