বাংলাদেশ সফরে আসবে অস্ট্রেলিয়া

চলতি বছরের শেষের দিকে বাংলাদেশ সফরে আসতে পারে অস্ট্রেলিয়া। এমন ইঙ্গিতই দিয়েছেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী জেমস সাদারল্যান্ড। এর মাধ্যমে বহুল প্রতিক্ষিত সিরিজের ব্যপারে আশাবাদী হতেই পারে বাংলাদেশ। স্টিভেন স্মিথের নেতৃত্বে এই সফরে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দুটি টেস্ট খেলতে পারে স্বাগতিক বাংলাদেশ। তবে সবকিছুর পরেও নিরাপত্তার বিষয়টিই আবারো মুখ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে।

এর আগে সফরটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল ২০১৫ সালের অক্টোবরে। কিন্তু নিরাপত্তার অযুহাতে স্ট্রেলিয়ান সরকারের সবুজ সঙ্কেত না থাকায় শেষ পর্যন্ত সিরিজটি আলো মুখ দেখেনি। এমনকি ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া ২০১৬ সালে জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপেও তাদের জুনিয়র দলটিকে পাঠায়নি।

অস্ট্রেলিয়ান এবিসি রেডিওতে বুধবার সাদারল্যান্ড বলেছেন, ‘আমি মনে করি এবার সুযোগটা অনেক বেশি। গত বছর আমরা দেখেছি ইংল্যান্ড দল বাংলাদেশ সফর করেছে। আমরা দেখেছি ইংল্যান্ড দলকে ঘিড়ে প্রচণ্ড নিরাপত্তা ছিল। আমরা মূলত সাত থেকে দশদিনের জন্য নিরাপত্তার বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করতে আমাদের নিরাপত্তা প্রধান সিন ক্যারলকে বাংলাদেশে পাঠিয়েছিলাম। পুরো বিষয়টি নিয়ে আমরা মোটামুটি সন্তুষ্ট।’

তিনি আরো বলেন, ‘যেকোন সময়ই যেকোন দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। এজন্যই আমরা বাংলাদেশে পর্যবেক্ষণ অব্যাহত রেখেছি। তবে সবকিছুর পরেও আমরা পরিকল্পনা করছি বাংলাদেশে খেলতে যাবার। এ ব্যপারে পরিকল্পনাও দ্রুতই শুরু করছি। বাংলাদেশ সরকারের নিরাপত্তা ইস্যুতে গৃহীত পদক্ষেপ নিয়ে আমরা খুশি। বিসিবির সাথেও আমাদের প্রতিনিয়ত যোগাযোগ হচ্ছে। এই মুহূর্তে আমি এটুকু নিশ্চিত করতে পারি আমরা দুটি টেস্ট খেলতে বাংলাদেশ সফরে যাচ্ছি।’

২০১৫ সালে অস্ট্রেলিয়ার বাংলাদেশ সফরেকে ঘিরে সন্ত্রাসী হামলার হুমকি ছিল বলে দাবি জানিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। সে কারণেই সফরটি তারা বাতিল করে।

সাদারল্যান্ড বলেছেন, আমি মনে করি পুরো বিষয়টি বেশ গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের কাছে নিরাপত্তাই প্রথম ইস্যু। এ ব্যপারে আমরা বিন্দুমাত্র ছাড় দিব না। নিরাপত্তার বিষয়টি প্রথম বিবেচনা করে আমাদের এটাও ভাবতে হবে যে বাতিল হয়ে যাওয়া সফরটি কবে নাগাদ হতে পারে। অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপেও একমাত্র দল হিসেবে আমরাই বাংলাদেশে যাইনি।

তারিখ বা ভেন্যু এখনো চূড়ান্ত না হলেও সম্ভবত আগস্ট কিংবা সেপ্টেম্বরে সিরিজটি আয়োজিত হতে পারে। ২০০৬ সালের পর থেকে বাংলাদেশের মাটিতে কোন টেস্ট সিরিজ খেলেনি অস্ট্রেলিয়া। তবে ২০১১ সালের এপ্রিলে বিশ্বকাপের পরপরই তিনটি ওয়ানডে ম্যাচ খেলতে বাংলাদেশে এসেছিল অসিরা।