{সাতটি} গুরুত্বপূর্ণ দিক ভারত বাংলাদেশ ম্যাচ এ

আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে এখন পর্যন্ত মোট আটবার মুখোমুখি হয়েছে ভারত ও বাংলাদেশ। প্রতিবারই পরাজিত হয়েছেন টাইগাররা। ক্লোজ ম্যাচ হয়েছে দুটি। ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে মুশফিক-মাহমুদউল্লাহ’র চরম ভুলে তীরে এসে তরী ডুবে বাংলাদেশের। ইন্ডিয়ার কাছে মাত্র ২ রানে হারে টাইগাররা। সেই হার এখনো পোড়ায় দেশের কোটি ক্রিকেটপ্রেমীদের। এর পরের হারটি আরো দগদগে। ২০১৮ সালে নিদাহাস ট্রফির ফাইনালে জিততে জিততে হেরে যায় বাংলাদেশ। দীনেশ কার্তিকের অতিমানবীয় ইনিংসে শিরোপা হাতছাড়া হয় টাইগারদের। বাকি ৬ ম্যাচে দাপুটে জয় তুলে নেয় ভারত। এবার সব হার ভুলার পালা এসেছে। আজ রোববার (৩ নভেম্বর) শুরু হচ্ছে তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজ। এ প্রথম ভারতের সঙ্গে পূর্ণাঙ্গ দ্বিপক্ষীয় সিরিজ খেলতে যাচ্ছে বাংলাদেশ।

১. সন্ধ্যা ৭ টায় দিল্লির অরুন জেটলি স্টেডিয়ামে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে মুখোমুখি হবে দুই দল। ম্যাচ মাঠে শুরুর আগেই বেশ সমালোচিত সেখানকার পরিবেশ। বায়ু দূষণে ভারী হয়ে গেছে চারপাশের বাতাস। খেলার মোটেও উপযোগী নয় এ স্টেডিয়াম। এ নিয়ে বিতর্ক থাকলেও সেই ভেন্যুতেই সন্ধ্যা ৭টায় খেলা শুরু হবে। ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে গাজী টিভি ও স্টার স্পোর্টস ওয়ান।

২. এ মাঠের উইকেট বরাবরই স্পিন ও ব্যাটিং সহায়ক। তবে বড় ধাঁধার নাম শিশির। ম্যাচের শুরু থেকে ব্যাট-বলের সঙ্গে এর লড়াইও চলবে। খেলায় দারুণ প্রভাব ফেলতে পারে শিশির। ফলাফল নির্ধারণে নিয়ামক ভূমিকা রাখতে পারে এটি। মুহূর্তেই বলের গতিপথ পরিবর্তন হতে পারে।

৩. এ স্টেডিয়ামের আগে নাম ছিল ফিরোজ শাহ কোটলা। সম্প্রতি সেটি পাল্টে ফেলা হয়েছে। এর পেছনে রাজনৈতিক ও ধর্মীয় ইস্যু রয়েছে। বরাবরই এখানে রান ওঠে বেশি। ধারণা, করা হচ্ছে এ ম্যাচও হবে রানের বন্যা। সর্বোপরি, যারা পরে ব্যাট করবেন তারা একটু বেশি সুবিধা পাবেন। শিশির বেশি পড়লে বল কম গ্রিপ করবে এবং তা সোজা ব্যাটে আসবে।

৪. এ ম্যাচে বাংলাদেশ পাচ্ছে না সিনিয়র দুই সদস্য সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবালকে। জুয়াড়ির প্রস্তাব ফিরিয়ে দেয়ার পর তা গোপন করায় আপাতত ক্রিকেটে ১ বছরের জন্য নিষিদ্ধ বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। তার পরিবর্তে দলকে নেতৃত্ব দেবেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। আর পারিবারিক কারণে সফরে নেই ড্যাশিং ওপেনার তামিম। ফলে তরুণদের উপর নির্ভর করতে হবে সফরকারীদের।

৫. ভারতীয় দলে নেই নিয়মিত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। এ সিরিজে বিশ্রামে রয়েছেন তিনি। তার বদলে অধিনায়কত্ব করবেন হিটম্যান রোহিত শর্মা। আর দীর্ঘদিন ধরে দলের বাইরে মহেন্দ্র সিং ধোনি। ফলে মিডলঅর্ডারে ভুগতে হতে পারে তাদের।

৬. বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ: লিটন কুমার দাস, সৌম্য সরকার, মোহাম্মদ নাঈম/ মোহাম্মদ মিঠুন, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, আফিফ হোসেন, আরাফাত সানি, মোস্তাফিজুর রহমান, আল-আমিন হোসেন ও আবু হায়দার রনি/তাইজুল ইসলাম।

৭. ভারতের সম্ভাব্য একাদশ: রোহিত শর্মা (অধিনায়ক), শিখর ধাওয়ান, লোকেশ রাহুল, শ্রেয়াস আয়ার, রিশব প্যান্ট, শিভাম দুবে, ক্রুনাল পান্ডিয়া, ওয়াশিংটন সুন্দর, ইয়ুজবেন্দ্র চাহাল, দীপক চাহার ও শার্দুল ঠাকুর/খলিল আহমেদ।