রোগীর স্বজনের সাথে সিনিয়র নার্সের যৌন ভিডিও ভাইরাল

বরিশালে এক রোগীর স্বজনের সাথে শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (শেবাচিম) সিনিয়র নার্স রফিকুল ইসলামের যৌন কর্মের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে।

দীর্ঘ ২০ মিনিটের ওই ভিডিও ক্লিপটি ইতিমধ্যে হাসপাতালের ডাক্তার-নার্স এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মুঠোফোনে হাতে হাতে চলে গেছে। এ ঘটনায় নাস রফিকুলকে ধিক্কার জানাচ্ছে সবাই।

সে বরিশাল সদর উপজেলা চরবাড়িয়া গ্রামের ওয়াজেদ আলীর ছেলে ও শেবাচিম হাসপাতালের অর্থোপেডিক্স (মহিলা) ওয়ার্ডের সিনিয়র স্টাফ নার্স হিসেবে কর্তব্যরত রয়েছেন। এর আগেও একাধিক নারীর সাথে গভীর সম্পর্কে জড়িয়ে বিতর্কিত হয়েছেন তিনি।

সাম্প্রতিক একটি বদ্ধ বাসায় এক রোগীর স্বজনের সাথে রফিকুলের যৌন কর্মের একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। ওই ভিডিও’র নিয়ে গত ১৪ জানুয়ারী রফিকুলের সাথে তার স্ত্রী শেবাচিম হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স তানিয়া বেগমের ঝগড়া হয়। এর জের ধরে ওইদিন বাসার দরজা বন্ধ করে স্ত্রীকে শারীরিক নির্যাতন চালায় সে। বিষয়টি জানতে পেরে শেবাচিম হাসপাতালেল সেবা তত্ত্বাবধায়ক সেলিনা আক্তার উভয়কে ডেকে নিয়ে সতর্ক করে দেন।

তানিয়ার ভাই ভোলার নার্সিং ইন্সট্রাক্টর আফজাল হোসেন জানান, তার ছোট বোন তানিয়াকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে রফিকুল বিয়ে করে। বিয়ের ১৩ বছর অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত রফিকুল কাবিন রেজিস্ট্রি করেনি। অনৈতিক কর্মকান্ডের প্রতিবাদ করলে সে প্রায়ই তার বোন তানিয়ার উপর নির্যাতন চালায়। সম্প্রতি রফিকুলের সাথে এক নারীর অশ্লীল ভিডিও ভাইরালের বিষয় নিয়ে কথা বলায় সে তার বোনকে নির্যাতন করে।

রফিকুলের স্ত্রী তানিয়া বেগম জানান, স্বামীর অনৈতিক কর্মকান্ডের প্রতিবাদ করায় সে প্রতিনিয়ত তাকে নির্যাতন করে। তাদের দাম্পত্যে দুটি সন্তান রয়েছে। সন্তানের কথা চিন্তা করে রফিকুলকে অপকর্ম থেকে বিরত থাকতে পরামর্শ দেন। কিন্তু সে কারোর কথা শুনছে না। এর আগেও রফিকুলের একটি বিয়ে থাকলেও সেই স্ত্রীকে তালাক দিয়ে তাকে (তানিয়া) বিয়ে করে সে। তবে ওই ঘরে একটি সন্তান রয়েছে তার।

অর্থোপেডিক্স ওয়ার্ডের অন্যান্য নার্স ও স্টাফরা জানান, রফিক দির্ঘদিন ধরে ওই ওয়ার্ডে আগত রোগী কিংবা তাদের স্বজনদের সাথে সখ্যতা গড়ে তোলে। পরে তাদের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ স্থাপনের মাধ্যমে প্রেম ও পরকীয়া সম্পর্ক জড়িয়ে পড়ে। এসব অনৈতিক সম্পর্ক নিয়ে রফিকুলের সাথে তার স্ত্রী তানিয়ার পারিবারিক কলহ হয়। সব শেষ সম্প্রতি এক রোগীর স্বজনের সাথে রফিকুলের অনৈতিক সম্পর্কের ভিডিও ক্লিপের বিষয়টি হাসপাতালের সবার মুখেমুখে। এ কারনে তাকে এড়িয়ে চলছে সবাই।

স্বাধীনতা নার্সেস পরিষদের (স্বানাপ) শেবাচিম শাখার সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান জানান, রফিকুলের বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকান্ডের বিষয়টি তারা অবগত আছেন। সাম্প্রতিক অনৈতিক ভিডিও’র বিষয়ে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে। এর আগেও সে ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রীকে কটুক্তি করায় তাকে সংগঠন থেকে বহিস্কার করা হয় বলে তিনি জানান।