নতুন র‌্যাংকিংয়ে বিশ্বের ৪ নম্বর বোলার মিরাজ, সেরা দশে মুস্তাফিজ

ওয়ানডে সিরিজে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হোয়াইটওয়াশ করার পুরস্কার আইসিসি র‌্যাংকিংয়েও পেয়েছে বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। বোলারদের র‌্যাংকিংয়ে বড়সড় লাফ দিয়েছেন মেহেদি হাসান মিরাজ, মোস্তাফিজুর রহমান ও সাকিব আল হাসান। এছাড়া ব্যাটসম্যানদের র‌্যাংকিংয়েও হয়েছে উন্নতি।

ক্যারিয়ার সেরা ৬৯৪ রেটিং পয়েন্ট পেয়ে র‌্যাংকিংয়ের চার নম্বর স্থানে উঠে এসেছেন অফস্পিনার মেহেদি মিরাজ। ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে মাত্র ২.৭০ ইকোনমি রেটে সিরিজ সর্বোচ্চ ৭ উইকেট নেয়ার সুবাদে ৯ ধাপ এগিয়ে ৪ নম্বরে বসেছেন মিরাজ। তিনি নিজেও চিন্তা করতে পারেননি, র‌্যাংকিংয়ে এতটা উন্নতি করতে পারবেন।

বুধবার বিসিবির পক্ষ থেকে দেয়া ভিডিওবার্তায় নিজের প্রতিক্রিয়া জানিয়ে মিরাজ বলেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ! খুব ভালো লাগছে। আমি আসলে চিন্তাও করতে পারিনি যে সেরা পাঁচে থাকব। আল্লাহর অশেষ রহমতে খুব ভালো লাগছে, যখন শুনতে পেরেছি এবং সবাই যখন টিমমেটরা উইশ করেছে। খুব ভালো লাগছে।’

ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ে বাজিমাত করলেও, মিরাজের আন্তর্জাতিক অঙ্গনে শুরুর পথচলাটা ছিল টেস্ট ক্রিকেটময়। বিশেষ করে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অভিষেক সিরিজেই ১৯ উইকেট নিয়ে গড়েছিলেন বিশ্বরেকর্ড। এছাড়াও সবমিলিয়ে ওয়ানডের চেয়ে টেস্টেই বেশি সফল তিনি।

তবে মিরাজ নিজে শুধু টেস্টের বোলার হয়ে থাকতে চান না। ওয়ানডেতেও ভালো করার জন্য নিজেকে তৈরি করছেন জানিয়ে বলেন, ‘যখন আমি টেস্ট ক্রিকেট খেলা শুরু করেছি, আমার চিন্তা ছিল যে শুধু আমি লাল বলেই খেলব না, সাদা বলেও খেলব। আমি নিজেকে ওইভাবে মানসিকভাবে প্রস্তুত করেছি। ওয়ানডে ক্রিকেটে কিভাবে ভালো করতে হবে এবং কোন কোন জায়গায় উন্নতি করতে হবে তা যথাযথ করার চেষ্টা করেছি।’

তিনি আরও যোগ করেন, ‘চিন্তা করেছি ওয়ানডে ক্রিকেট খেলতে হলে আমার বোলিং ইকোনমিটা ঠিক রাখতে হবে এবং ব্রেকথ্রু দিতে হবে যখন টিমের প্রয়োজন। ওইটা নিয়েই চেষ্টা করছি। আমি যখন বোলিং করি, চেষ্টা থাকে ইকোনমিটা ঠিক রাখার এবং দলের প্রয়োজনে ব্রেকথ্রু এনে দেয়ার।’

মিরাজের পাশাপাশি বোলিং র‌্যাংকিংয়ের সেরা দশে ঢুকেছেন বাঁ-হাতি পেসার মোস্তাফিজুর রহমানও। ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে তিন ম্যাচে তিনি নিয়েছেন ৬ উইকেট। নিজের বন্ধুবৎসল সতীর্থের সাফল্যে উচ্ছ্বসিত মিরাজ। তার অধীনেই ২০১৬ সালের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ খেলেছিলেন মিরাজ। এছাড়া বয়সভিত্তিক ক্রিকেটের সব পর্যায়েই একসঙ্গে খেলেছেন তারা দু’জন।

বন্ধুর অর্জনে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে মিরাজ বলেছেন, ‘আমাদের সবার জন্য এটা অনেক ভালো বিষয় যে মোস্তাফিজ সেরা দশের মধ্যে আছে। মোস্তাফিজ ওয়ার্ল্ড ক্লাস বোলার। ওয়ানডে ক্রিকেট দেশকে অনেক অনেক জয় এনে দিয়েছে মোস্তাফিজ। ওর জন্য এরকম একটা জিনিস দরকার ছিল। এই সিরিজে অনেক ভালো বল করেছে এবং টিম ম্যানেজমেন্ট থেকে শুরু করে প্রত্যেকটা প্লেয়ারই খুশি ওর পারফরম্যান্সে।’

‘আমরা চাই মোস্তাফিজ আরও ভালো করুক এবং বাংলাদেশকে অনেক কৃতিত্ব এনে দিক, জয় এনে দিক। আর মোস্তাফিজ তো আমার অনেক কাছের বন্ধু। আমরা ছোটবেলা থেকেই একসাথে ক্রিকেট খেলেছি, অনূর্ধ্ব ১৬, ১৭, ১৮, ১৯ সবই খেলেছি। ওর সাথে অনেক দুষ্টামিও করি। খুব ভালো লাগছে যে ও সেরা দশের ভেতরে আছে।’