টি-১০ লিগ: অধিনায়ক মোসাদ্দেকের দলে সোহাগ গাজী

আজ থেকে শুরু হতে যাচ্ছে টি-১০ ক্রিকেট লিগের চতুর্থ আসর। লিগে যে বাংলাদেশি ক্রিকেটাররা দল পেয়েছেন তাসকিন আহমেদ ছাড়া সবাইকেই অনাপত্তিপত্র দিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। তাসকিনকে দলে ভিড়িয়েছিল মারাঠা অ্যারাবিয়ান্স। তার বদলে দলে ডাকা হয়েছে সোহাগ গাজীকে।

ইতোমধ্যেই সংযুক্ত আরব আমিরাতে চলে গিয়েছেন অফ স্পিনার সোহাগ গাজী। মারাঠা অ্যারাবিয়ান্সের অনুশীলনেও দেখা গিয়েছে ২৯ বছর বয়সী এ স্পিনারকে। তার দলে আছেন আরো দুই বাংলাদেশি ক্রিকেটার। অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও মুক্তার আলিকে প্লেয়ার্স ড্রাফটে দলে ভিড়িয়েছিল মারাঠা অ্যারাবিয়ান্স। দলে শোয়েব মালিক ও মোহাম্মদ হাফিজের মতো অভিজ্ঞরা থাকলেও অধিনায়কত্ব দেওয়া হয়েছে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতকে।

টুর্নামেন্ট শুরুর একদম প্রাক্কালে দল পেয়েছেন বাংলাদেশের মনির হোসেন। টি-১০ ক্রিকেটে ডাক পাওয়া বাংলাদেশের ক্রিকেটারের মধ্যে একমাত্র তারই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার অভিজ্ঞতা নেই। ৩৫ বছর বয়সী স্পিনার মনির খেলবেন নাসির হোসেনের নেতৃত্বে পুনে ডেভিলসের হয়ে।

এছাড়া বাংলা টাইগার্সের সহ-অধিনায়কের দায়িত্ব পেয়েছেন অলরাউন্ডার আফিফ হোসেন ধ্রুব। সতীর্থ হিসেবে আফিফ পেতে যাচ্ছেন বাংলাদেশের অলরাউন্ডার মেহেদী হাসানকেও। গত ২৫ জানুয়ারি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডের পর টি-১০ লিগ খেলতে দেশ ছাড়েন আফিফ ও মেহেদী।

টুর্নামেন্টের প্রথম দিন নর্দার্ন ওয়ারিয়র্সের বিপক্ষে মাঠে নামবে মারাঠা অ্যারাবিয়ান্স। এরপর ২৯ জানুয়ারি দিল্লী বুলস এবং ৩০ জানুয়ারি বাংলা টাইগার্সের বিপক্ষে মাঠে নামবে মারাঠা অ্যারাবিয়ান্স।

এক নজরে মারাঠা অ্যারাবিয়ান্সের স্কোয়াড: শোয়েব মালিক, লরি ইভান্স, মোহাম্মদ হাফিজ, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত (অধিনায়ক), সোহাগ গাজী, প্রভীন তাম্বে, ঈষান মালহোত্রা, সোমপাল কামি, মুক্তার আলি, আমজাদ গুল, আবদুল শাকুর, মারুফ মার্চেন্ট ও সৈয়দ শাহ।

মোট আটটি দল অংশ নিতে যাচ্ছে এ টুর্নামেন্টে। দলগুলো হলো: বাংলা টাইগার্স, দিল্লী বুলস, কালান্দার্স, ডেকান গ্ল্যাডিয়েটর্স, পুনে ডেভিলস, টিম আবুধাবি, মারাঠা অ্যারাবিয়ান্স এবং নর্দার্ন ওয়ারিয়র্স।