রিয়ালকে টপকে দুইয়ে এখন বার্সেলোনা

এই সপ্তাহের খেলাগুলো বেশ গুরুত্বপূর্ণ বিশেষ করে লা লিগার। শীর্ষ ছয় দলই মুখোমুখি হচ্ছে এই সপ্তাহে।আর সপ্তাহের শুরুতেই সেভিয়ার মুখোমুখি হয়েছে শিরোপাপ্রত্যাশী বার্সেলোনা।এই নিয়ে বার্সার কোচ রোনাল্ড কোম্যানও বেশ বড় রকমের চাপেও ছিলেন।

কিন্তু খুব শক্ত প্রতিপক্ষ সেভিয়াকে হারাতে পারেনি বার্সা। আর কোপা দেল রের সেমিফাইনালের প্রথম লেগেও সেভিয়ার মাঠে গিয়ে ২-০ গোলে হেরেছে বার্সা। তাই আজ রাত সোয়া ৯টায় বার্সা সমর্থকরা একরাশ দুশ্চিন্তা নিয়ে বসেছিল খেলা দেখতে।

এবার বার্সা সমর্থকদের মুখে হাসি ফুটিয়েছেন দলের অধিনায়ক মেসি আর তারকা খেলোয়াড় উসমান দেম্বেলে। প্রতিপক্ষের মাঠে শনিবার রাতে লা লিগার ম্যাচটি ২-০ গোলে জিতেছে বার্সেলোনা।

ম্যাচের প্রথম ২০ মিনিটে শানিত কোনো আক্রমণ করতে পারেনি বার্সেলোনা। ২৯তম মিনিটে মাঝমাঠ থেকে মেসির থ্রু পাস ধরে ডি-বক্সে ঢুকে বাঁ পায়ের কোনাকুনি শটে লক্ষ্যভেদ করেন দেম্বেলে। ওই এক গোলেই বিরতিতে যায় বার্সা। দ্বিতীয়ার্ধে নেমে শুরুতেই বার্সার গোলপোস্ট বরাবর প্রথম শট নেয় সেভিয়া। হেসুস নাভাসের দুর্বল শটটি সহজেই রুখে দেন মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন।

পাল্টা আক্রমণে পরের মিনিটেই ব্যবধান দ্বিগুণ করার সুযোগ নষ্ট করেন বার্সেলোনার আলবা। এর সাত মিনিট পরে সহজ সুযোগ মিস করে সমর্থকদের হতাশ করেন মেসি। দেম্বেলের কাটব্যাক বক্সে ফাঁকায় পেয়ে পোস্টের বাইরে দিয়ে উড়িয়ে মারেন অধিনায়ক। তবে ৮৫তম মিনিটে ছন্দে ফেরেন মেসি। দুই জন ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে দুর্দান্ত গোল করেন আর্জেন্টাইন খুদেরাজ।

মেসির নেওয়া শট ঠিক মতো ফেরাতে পারেননি ইয়াসিন বোনো। ফিরতি বল ধরে বোনেকে কাটিয়ে ফাঁকা জালে বল পাঠান বার্সা অধিনায়ক। রেফারির শেষ বাঁশিতে ২-০ গোলের ব্যবধানে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে কাতালানরা। এ জয়ের পর পয়েন্ট টেবিলে রিয়াল মাদ্রিদকে টপকে ফের দুইয়ে উঠল বার্সেলোনা।

২৫ ম্যাচে ১৬ জয় ও পাঁচ ড্রয়ে বার্সেলোনার পয়েন্ট ৫৩। এক ম্যাচ কম খেলা রিয়ালের পয়েন্ট ৫২। ২৩ ম্যাচে ১৭ জয় ও চার ড্রয়ে ৫৫ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে আথলেটিকো মাদ্রিদ। লিগে টানা ছয় জয়ের পর হারের স্বাদ পাওয়া সেভিয়া ২৪ ম্যাচে ৪৮ পয়েন্ট নিয়ে আছে চার নম্বরে।