বিয়ের পর ফিরেই ফিটনেস টেস্টে সবাইকে চমকে দিলেন নাসির

জীবনের গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় শুরু করতে গিয়ে পড়ে যান বেকায়দায়। যার কারণে নাসিরের মাঠের খবর সম্পর্কে তেমন আলোচনার সুযোগ ছিল না। তবে নাসির দেখালেন মাঠেও দমে যাওয়ার পাত্র নন তিনি। এবার ফিটনেস স্কোরে তাক লাগিয়ে দিলেন এই অল রাউন্ডার।

আর কদিন পরেই শুরু হতে যাচ্ছে বাংলাদেশের ঘরোয়া ক্রিকেট। জাতীয় ক্রিকেট লিগ (এনসিএল) দিয়ে মাঠে ফেরার আগে দেশের ক্রিকেটাররা নিজেদের প্রস্তুত করে নিচ্ছেন। আর প্রস্তুত করার পথে হাঁটতে গিয়েই অনেকেরই ফিটনেস ঘাটতি দেখা যাচ্ছে। তবে এ ক্ষেত্রে একেবারে ব্যতিক্রম উদাহরণ তৈরি করলেন নাসির হোসেন।

উত্তরবঙ্গ থেকে উঠে আসা জাতীয় দলের এই ক্রিকেটার গতকাল বুধবার মিরপুরে শেরে বাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে ফিটনেস টেস্ট দেন। এদিন সকাল ১০টায় ইয়ো ইয়ো টেস্ট- এ অবতীর্ণ হন নাসির হোসেন। এখানে নাসির হোসেন দেখিয়েছেন তার কারিশমা। ইয়ো ইয়ো টেস্টে নাসির হোসেনের স্কোর ছিল ১৭.১। বিসিবির ট্রেনার ইফতেখারুল ইসলাম ইফতি বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন গণমাধ্যমকে।ইফতেখারুল ইসলাম ইফতি বলেন, ‘নাসির হোসেন বুধবার সকাল ১০টায় ফিটনেস টেস্ট দিয়েছেন। ভালো স্কোর তুলেছেন তিনি, তাঁর স্কোর ১৭.১।’

এছাড়াও এদিন ফিটনেস টেস্ট দিয়েছেন এনামুল হক জুনিয়র, আলাউদ্দিন বাবুর মতো ঘরোয়া ক্রিকেটের নিয়মিত খেলোয়াড়রা। তবে তরুণ ক্রিকেটার নিহাদ উজ জামান অভূতপূর্ব স্কোর গড়েছেন। তাঁর ইয়ো ইয়ো টেস্টে স্কোর দাঁড়ায় ২১.১।

একজন ক্রিকেটার দলে থাকবেন নাকি থাকবেন না তা নির্ভর করে তার পারফর্ম্যান্স এর উপর। কিন্তু বাংলাতে একটা প্রবাদ আছে, ‘প্রথমে দর্শনধারী, এরপর গুণবিচারী।’ পারফর্ম্যান্স পরিমাপ হলো সেই গুণ বিচারের প্রক্রিয়া। আর দর্শনধারী প্রক্রিয়াটা হলো ফিটনেস টেস্ট।

ইয়ো ইয়ো টেস্ট আসলে মূলত বিপ টেস্টের একটি ‘উন্নত রূপ’। বিপ টেস্ট প্রক্রিয়াটিকেই একটু জটিল আর সংশোধন করে নাম দেওয়া হয়েছে ‘ইয়ো ইয়ো টেস্ট’। ইয়ো ইয়ো টেস্টের ক্ষেত্রে একজন ক্রিকেটার কি গতিতে দৌড়াচ্ছে সেটি বিবেচনায় আনা হয় এবং স্কোর নির্ধারণে এটি বড়সড় একটা ভূমিকা রাখে।

ইয়ো ইয়ো টেস্টের ক্ষেত্রে ১৬.১ স্কোরের কম হলে তাকে ভারতীয় ক্রিকেটে আর বিবেচনায় নেওয়া হয়না। ২০১৮ এর জুলাইতে যে কারণে পারফরম্যান্স এর চূড়ায় থাকার পরও আম্বাতি রাইডুকে ইংল্যান্ড সফরের ওয়ানডে দল থেকে বাদ পড়তে হয়।

বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপ বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের মাঝখানে বিপ টেস্টে কম স্কোর ওঠায় সমালোচিত হয়েছিলেন নাসির। তবে চোটের কারণে তখন পুরোপুরি ফিট ছিলেন না তিনি। তবে এবার রীতিমতো চমকে দিলেন তিনি।