উন্নয়নের নামে দেশকে ফোকলা করে দিচ্ছে সরকার: ফখরুল

উন্নয়নের গণতন্ত্র চলছে সরকারের পক্ষ থেকে এমন দাবি করা হলেও মেগা প্রজেক্ট দেখিয়ে দেশটাকে ফোকলা করে দেয়া হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, প্রতিটি ক্ষেত্রে ভ্যাট বসিয়ে জনগণের পকেট কেটে তারা তাদের পকেট ভারি করছে। আজ রবিবার (১৪ মার্চ) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে দলের যুগ্ম-মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল রচিত ‘কুপি বাতির গণতন্ত্র’ গ্রন্থের মোড়ক উম্মেচন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। গ্রন্থটি প্রকাশনা করে জাতীয়তাবাদী প্রকাশনা সংস্থা।

মির্জা ফখরুল বলেন, এখানে আসতে আসতে ফরেন আফেয়ারস মিনিস্ট্রির দেওয়ালে বড় বড় করে লেখা দেখলাম, উন্নয়নের গণতন্ত্র, শেখ হাসিনার মূলমন্ত্র। এটার ব্যাখ্যা অনেকে অনেক ভাবে দিতে পারে সেটা বলবো না। আজ বিশাল একটি ঘটনা ঘটেছে আপনারা কেউ দেখেছেন কিনা জানিনা, এয়ারপোর্টের সামনে এলিভেটেড এক্সপ্রেসের গার্ডার ভেঙে পড়েছে। চিন্তা করেন, জনগণের টাকা নিয়ে যে এই সমস্ত তৈরি করা হচ্ছে, সেটা হঠাৎ করে ভেঙে পড়ছে। তাহলে তার মান কি হচ্ছে? আমরা একটি কথা বারবার বলছি, মেগা প্রজেক্ট দিয়ে উন্নয়নের ধুয়া তুলে দেশটাকে ফোকলা করে দিচ্ছেন। কাদের পয়সা নিচ্ছেন? গত কালকে না পরশুদিন একটা খবর আছে, ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম ফাস্টেস্ট ট্রেন হবে। দুটো চিনা কোম্পানি টাকা দিবে এবং সেটা দিয়ে তৈরি হবে। আর এতে আমার চাল, তেল, লবণ কিনতেও ভ্যাট দিতে হবে।

তিনি বলেন, পৃথিবীর বিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে এবং মানব সভ্যতার বিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে রাজনীতিকে এমন একটা জায়গায় নিয়ে আসা হয়েছে যেখানে ‘ডার্টি’ বললে এটাকে খুব একটা খারাপ কিছু বলা হয়। আমরা বাংলাদেশে দেখছি, আমাদের রাজনীতিকে কোথায়, কিভাবে, একেবারে অন্ধকার ঘরে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। যেখানে কুপিবাতি দিয়েও খুঁজে পাওয়া যাবে না। একটা নোংরা নর্দমাতে গিয়ে উপস্থিত করেছে। আমাদের রাজনীতিবিদদের মধ্যে জ্ঞান চর্চা নেই বললেই চলে।

বিএনপির এই মহাসচিব বলেন, আমরা যে একেবারে অন্ধকারে আছি, তা বলা যাবে না। আমাদের দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে। সবাই খুব হতাশ, আমার চোখে পানি আসে, কান্না আসে। কিন্তু আমার যে কথাটি মনে হয়, কোথায় সেই মানুষ, কোথায় সেই নেত্রী শুধুমাত্র গণতন্ত্রের জন্য এতোবড় ত্যাগ করছেন। এইটা খুবই কম পাওয়া যায়। অনুষ্ঠান থেকে অসুস্থ থাকা বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের জন্য দোয়া চান তিনি।

গয়েশ্বর চন্দ্র রায়ের সভাপতিত্বে বইটির মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, দলের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. এবিএম ওবায়দুল ইসলাম, অধ্যাপক ড. মোর্শেদ হাসান খান, জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস খান, জাতীয়তাবাদী প্রকাশনা সংস্থার প্রকাশক জহির তৃপ্তি।