ঠাকুরগাঁওয়ে মাটির নিচে পাওয়া গেল পাত্র ভর্তি রৌপ্য মুদ্রা

ঠাকুরগাঁওয়ের রুহিয়ায় এক স্কুল শিক্ষকের বাড়ী হতে ১৪৩ পিস রৌপ্য মুদ্রা উদ্ধার করেছে রুহিয়া থানা পুলিশ। সোমবার (১৫ মার্চ) দিনগত রাত সাড়ে ১১টায় রুহিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ চিত্ত রঞ্জন রায় এর নেতৃত্বে এসআই মনির হোসেন ও তার সংগীয় ফোর্সসহ একটি পাত্রসহ মোট ১৪৩ টি রৌপ্য মূদ্রা রাজাগাঁও ইউনিয়নের রাজারামপুর গ্রামের কেশব চন্দ্র (স্কুল শিক্ষক)’র বাড়ি থেকে উদ্ধার করে।

এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, স্কুল শিক্ষক কেশব চন্দ্র তার নিজ বাড়িতে সেপটি ট্যাংক স্থাপনের জন্য একই গ্রামের মহেন্দ্র চন্দ্র বর্মণ নামে এক শ্রমিককে দিয়ে গত ১৩ মার্চ মাটি খনন করিয়েছিলেন। মাটি খননকালে মহেন্দ্র মাটির নিচে একটি পাত্রে ১৪৩ টি রৌপ্য মুদ্রা পেয়ে তা বাড়ির মালিক কেশব চন্দ্র বর্মণকে দিয়ে দেন। কিন্তু বিষয়টি উভয়ে গোপন রাখেন।

মাটি খননকালে গুপ্তধন পাওয়ার বিষয়টি এক পর্যায়ে ফাস হয়ে যায়। খবর পেয়ে স্থানীয় বেশ কয়েকজন সাংবাদিক এ বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করতে যায়। এসময় শ্রমিক মহেন্দ্র পাত্রসহ মুদ্রা পাওয়ার বিষয়টি সাংবাদিকদের নিকট স্বীকার করেন এবং এ তথ্য গোপন রাখতে স্কুল শিক্ষক কেশব চন্দ্র তাকে নির্দেশ দেন।

স্কুল শিক্ষক কেশব চন্দ্রের নিকট এ বিষয়য়ে জানতে চাইলে তিনি ক্যমেরার সামনে কোন কথা বলেননি এবং এ ব্যাপারে তিনি কিছুই জানেনা বলে সাংবাদিকদের জানান।

রৌপ্য মুদ্রা গুলো পাত্রসহ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন রুহিয়া থানা ওসি চিত্ত রঞ্জন রায়। তিনি জানান, এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।