বগুড়ার করতোয়া গাড়ীর অনিয়ম, যাত্রীর খোয়া গেল প্রায় আড়াই লক্ষ টাকা

বগুড়ার করতোয়া গাড়ীতে শেরপুর আসার পথে নিয়ম ভেঙ্গে যাত্রী নামিয়ে দেওয়া শেরপুর রুরাল ইলেকট্রো প্লাস হিরো শোরুমের সত্বাধীকারি আব্দুল আলিমকে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে নগদ টাকা, আই ফোন ও স্যামসাং এস১০ মোবাইলটি খোয়া যায়। আজ শুক্রবার (১৯ মার্চ) দুপুরে শেরপুর রুরাল ইলেকট্রো প্লাস হিরো শোরুমের ম্যানেজার নাদিম মাহমুদ বিষয়টি নিশ্চিত করেন। জানা যায়, বৃহস্পতিবার ব্যবসায়িক কাজ শেষে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে শেরপুরে আসার জন্য করতোয়া বাসের জন্য সাত-মাথায় অপেক্ষা করে।

গাড়িটি আসার দেড়ি হওয়ায় অজ্ঞান পার্টির ৬ সদস্য আব্দুল আলিমকে বলে আমরাও শেরপুরের যাত্রী বলে বন্ধুত্ব সুলভ আচরণ করে ডাব খাওয়ায়। পরে গাড়িটি আসলে তারা করতোয়া গাড়িতে উঠে। সাত-মাথা থেকে ছেড়ে শেরপুর আসার পরে সে অজ্ঞান হয়ে পড়লে অজ্ঞান পার্টির ৬ সদস্যরা তার নিকট থাকা নগদ ৭৫ হাজার টাকা, ৫২ জাহার টাকার আই ফোন, ১ লক্ষ টাকার স্যামসাং এস১০ মোবাইল, মানিব্যাগ নিয়ে তারা ক্যান্টনমেন্টের সামনে নেমে যায়।

গাড়িটি তাদের নেমে দিয়ে দশমাইল এলাকায় আসলে সে সিট থেকে অজ্ঞান অবস্থায় পড়ে যায়। পড়ে যাত্রী শামিম হোসেন শেরপুর রুরাল ইলেকট্রো প্লাস হিরো শোরুমের ম্যানেজার নাদিম মাহমুদকে জানায়। তখন ম্যানেজার নাদিম মাহমুদ হোটেল সাউদিয়ার সামনে থেকে তাকে নিয়ে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। অবস্থা অবনতি হলে তাকে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করে।

শেরপুর রুরাল ইলেকট্রো প্লাস হিরো শোরুমের ম্যানেজার নাদিম মাহমুদ জানান, তার জ্ঞান ফিরলে আমরা আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করব। এ বিষয়ে শেরপুর থানা অফিসার ইনচার্জ শহিদুল ইসলাম জানান, এ বিষয়ে আমি জানিনা।