চিকিৎসার কথা বলে বৃদ্ধা মাকে মেরে অজ্ঞান করে দুই ছেলে

শেরপুরে অসুস্থ বৃদ্ধা মা আয়েশা সিদ্দিকা (৭৫) কে চিকিৎসার কথা বলে নিয়ে এসে জমি দলিল করে নিয়ে বাড়ি থেকে মাকে মেরে অজ্ঞান করে বের করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ছেলে মালু (৪৫) শাহালি (৪০) এর বিরুদ্ধে।

আজ সোমবার (২২ মার্চ) সুঘাট ইউনিয়নের চকধলী এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে। জানা যায়, গত তিন বছর পূর্বে বৃদ্ধা আয়েশা সিদ্দিকার স্বামী মহির উদ্দিন পরামানিক মারা যায়। বয়সের ভারতে আয়েশা সিদ্দিকা অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে বড় ছেলে মালু ও শাহালি মাকে হাসপাতালে চিকিৎসার কথা বলে নিয়ে আসে। মাকে কোন কিছু বুঝতে না দিয়ে তার নামে থাকা বাড়ির জায়গা ও কৃষি জমি তারা দলিল করে নেয়।

এরপর থেকে বৃদ্ধা মাকে বাড়ি থেকে চলে যেতে বলে। এরই ধারাবাহিকতায় সোমবার সকালে বৃদ্ধা মা তার ছোট বোনকে নিয়ে বাড়ি থেকে চলে যেতে বলে । না যাওয়াই বৃদ্ধা মা আয়েশাকে দুই ভাই মিলে মেরে অজ্ঞান করে। বৃদ্ধার বড় মেয়ে সারা খাতুন মাকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে তাকে ধরে মারধর করে।

পরে এলাকাবাসী ও বড় মেয়ে বৃদ্ধা আয়েশাকে উদ্ধার করে শেরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এসে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করায়। এ বিষয়ে বৃদ্ধা আয়েশা সিদ্দিকা বলেন, আমাকে ফাঁকি দিয়ে আমার ছেলেরা আমার জমি লিখে নিয়েছে। এবং আমাকে বাড়ী হতে বের হয়ে যেতে বলে । আমি বাড়ি থেকে বের হয়ে না যাওয়াই আমাকে মেরে অজ্ঞান করে।

এ বিষয়ে বৃদ্ধা আয়েশা সিদ্দিকার বড় মেয়ে সারা খাতুন বলেন, মায়ের জমি ফাঁকি দিয়ে ভাইয়েরা লিখে নিয়ে আমাদেরকে জমি থেকে বঞ্চিত করে দিয়েছে এবং মাকে আমাদেরকে দেখাশোনার কথা বলে মাকে মারধর করে।