দেশে ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত, উদ্বেগ প্রকাশ

দেশে চারজনের দেহে করোনার ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট বা ‘ডাবল মিউট্যান্ট’ ধরন শনাক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। শনিবার (৮ মে) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশীদ আলম গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। ডা. এবিএম খুরশীদ আলম বলেন, যশোরে কোয়ারেন্টিনে থাকা ভারত ফেরত ৬ রোগীর দেহে ভারতীয় ধরন পাওয়া গেছে। এ ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত রোগীরা ভারত থেকে ফিরেছেন। তারা চিকিৎসার জন্য ভারতে গিয়েছিলেন এবং বর্তমানে যশোরে অবস্থান করছেন।

তিনি বলেন, যশোরে কোয়ারেন্টিনে থাকা ভারত ফেরত ৬ রোগীর দেহে ভারতীয় ধরন পাওয়া গেছে। এ ভ্যারিয়েন্টে আক্রান্ত রোগীরা ভারত থেকে ফিরেছেন। তারা চিকিৎসার জন্য ভারতে গিয়েছিলেন এবং বর্তমানে যশোরে অবস্থান করছেন। এ নিয়ে আতঙ্ক হওয়ার কিছু নাই জানিয়ে খুরশীদ আলম বলেন, ভারত থেকে যারা দেশে আসছেন তাদের সবাইকেই হোম কোরেন্টাইনে রাখা হচ্ছে। শুধু ভারতের ভেরিয়েন্ট নয়, সব ধরনের ভ্যারিয়েন্ট দেশে ঢুকা রোধে সব ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

এদিকে, রাজধানীর বনানীতে বসবাস করা ৫৮ বছর বয়সী এক নারীর শরীর থেকে সংগ্রহ করা নমুনায় এই ধরন পাওয়া যায় বলে নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের (বিসিএসআইআর) জিনোমিক রিসার্চ ল্যাবরেটরির গবেষক দল। এ সংক্রান্ত তথ্য জার্মানির গ্লোবাল ইনিশিয়েটিভ অন শেয়ারিং অল ইনফ্লুয়েঞ্জা ডাটাতে (জিআইএআইডি) প্রকাশিত হয়েছে।

গতকালের পর ফের ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। এসময় আক্রান্ত হয়েছে এক হাজার ২৮৫ জন। দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরও ৪৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১১ হাজার ৮৭৮ জনে দাঁড়াল। শনিবার (৭ মে) স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। গতকাল মৃত্যের সংখ্যা চিল ৩৭ জন।

বিশ্ব পরিস্থিতি: করোনাভাইরাসের ছোবলে বিপর্যস্ত বিশ্ববাসী। দিন যত যাচ্ছে এর ভয়ঙ্কর ছোবলে প্রাণহানির সংখ্যা ততই বাড়ছে। প্রতিদিনই দীর্ঘ হচ্ছে মৃত্যুর সারি। লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্ত মানুষের সংখ্যাও। গত একদিনে বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ১৩ হাজার ৭২৬ জনের। একই সময়ে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৮ লাখ ৩৬ হাজার ৪৮৫ জন।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, শনিবার (৮ মে) সকাল পর্যন্ত করোনায় মারা গেছেন ৩২ লাখ ৮৩ হাজার ৭২৭ জন। আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ কোটি ৭৫ লাখ ৩০ হাজার ৭২৯ জন। এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১৩ কোটি ৫৭ লাখ ৯৭ হাজার ৫৮৯ জন।

বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় ৫ লাখ ৯৪ হাজার ৯১১ জনের প্রাণ নিয়েছে করোনা। এছাড়া সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে ৩ কোটি ৩৪ লাখ ১৮ হাজার ৮২৬ জনের দেহে।

যুক্তরাষ্ট্রের পর করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ ভারত। এশিয়ার মধ্যেও করোনায় সবচেয়ে বিপর্যস্ত দেশটি। ভারতে এখন পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ২ কোটি ১৮ লাখ ৮৬ হাজার ৬১১ জন। মারা গেছেন ২ লাখ ৩৮ হাজার ২৬৫ জন।

তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে ব্রাজিল। ল্যাটিন আমেরিকার এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ১ কোটি ৫০ লাখ ৮৭ হাজার ৩৬০ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৪ লাখ ১৯ হাজার ৩৯৩ জন।